Home » login এবং sign in মধ্যে পার্থক্য কি?

login এবং sign in মধ্যে পার্থক্য কি?

login vs sign in

login এবং sign in এর মধ্যে পার্থক্য কি?  হয়তো কখনো আপনি অবশ্যই এই প্রশ্ন করেছেন কারণ অনেক websiteেই আমরা দুটি option একি সঙ্গে দেখতে পাই। সাধারণত কোন দরকারে আপনি যখন কোন website খুলি তখন সেখানে কোনো রকম account তৈরি করার দরকার হয় না, কিন্তু internetএ এমন অসংখ্য website রয়েছে যেখানে আপনি account তৈরি না করে websiteটি access করতে পারবেন না। 

এই সমস্ত website  গুলিকে ঠিক ভাবে ব্যবহার করার জন্য আপনাকে এই website টিতে একটি account তৈরি করতে হবে। 

সুতরাং আপনি যখনই এর ধরনের কোনও website এ যাবেন, সেই websiteটি অ্যাক্সেস করার জন্য আপনাকে login এবং sign in করতে হবে। 

আপনি যদি কোনও websiteএ account তৈরি করে logout করে থাকেন তবে আপনাকে সেখানে login করতে হবে। একই ভাবে, আপনি যদি কোনও account তৈরি করার পরে sign out করে থাকেন তবে আপনাকে সেখানে sign in করতে হবে। 

এগুলি ছাড়াও যদি কোনও সামাজিক যোগাযোগ account যেমন facebook, gmail ইত্যাদির মাধ্যমে কোনও website অ্যাক্সেস করা যায় তবে আপনার এই দুটি জিনিসই দরকার।

প্রধানত এই সমস্ত website গুলিতেই login এবং sign in দুটি option user এর কাছে আসে।   এবং এই দুটি option এর মধ্যে কোনটি সিলেট করতে হবে এই বিভ্রান্তি কাটানোর জন্য প্রথমেই আপনাকে জানতে হবে login এবং সাইন এর মধ্যে পার্থক্য কি।

login এবং sign in মধ্যে পার্থক্য কি?

যদিও সাধারণত internet user রা এই দুটি শব্দের অর্থ এক বলে মনে করেন,  কিন্তু এর অনেক পার্থক্য রয়েছে। 

 একটি উদাহরণের সাহায্যে যদি এই পার্থক্য বুঝতে চেষ্টা করি তাহলে এটা অনেক সহজ ভাবে বোঝা সম্ভব।  আপনি হয়তো  অবশ্যই facebook এবং gmail ব্যবহার করেছেন।

বর্তমান যুগে প্রায় প্রত্যেক স্মার্টফোন ব্যবহারকারী এই দুটি অ্যাপ্লিকেশন সম্পর্কে অবগত।  আপনি  হয়তো facebook ব্যবহার করার সময় লক্ষ্য করে থাকবেন সেখানে login ব্যবহার করা হয়, আবার gmail এ সাইন sign in ব্যবহার করা হয়। 

প্রথমেই sign in সম্পর্কে কথা বলা যাক।  আপনি  যখন কোন  ওয়েব সাইটে sign in করেন  তখন সেই নির্দিষ্ট ওয়েব সাইটটি আপনার অ্যাক্সেস করা ডাটা সংরক্ষণ করে না।  অর্থাৎ ওই websiteে আপনি যে সমস্ত কাজ করেছেন বা websiteএর যে সমস্ত optionএ ক্লিক করেছেন তার কোনোটিই websiteটির ডেটাবেসে সংরক্ষণ করা হয় না।

সুতরাং আপনি যখনই কোন websiteএ sign in দেখবেন তখনই আপনাকে বুঝে নিতে হবে যে এই websiteটিতে আপনার কোন রকম কার্যকলাপ  সংরক্ষন করা হবে না।

এখন login সম্পর্কে কথা বলা যাক, login এর আওতায় আসা যে কোনও websitএ আপনি যে সমস্ত  কাজ করেছেন  সেগুলি website এর প্রতিটি web serverএ সঞ্চিত হয়। উদাহরণস্বরূপ facebook, যখন আপনি এই websiteএ  login করেন, facebook আপনাকে ট্র্যাক করতে শুরু করে।

Facebook জানে কখন কোন ছবি আপলোড করতে হবে। এগুলি ছাড়াও facebookও জানে যে আপনি কী পছন্দ করেন এবং অপছন্দ করেন। সুতরাং login বৈশিষ্ট্যের কারণে এই সমস্ত ঘটে।

আজ, facebook, ইনস্টাগ্রাম, টুইটারের মতো বেশিরভাগ সোশ্যাল মিডিয়া সাইটগুলি login ব্যবহার করে, কারণ তাদের প্রতিটি ব্যবহারকারীর কার্যকলাপ পর্যবেক্ষণ করতে হয়। এবং এখন অনলাইন শপিং সাইটগুলি যেমন অ্যামাজন, স্ন্যাপডিলও login ব্যবহার করতে শুরু করেছে। আপনি যখনই কোনও শপিং সাইটটিতে যান, তখনই আপনি আপনার পছন্দসই জিনিস গুলি দেখতে পান কারণ তারা জানেন যে আপনি কখন কোন পণ্যটিতে ক্লিক করেছেন।