Home » কম্পিউটার কি ? – সংজ্ঞা,বৈশিষ্ট্য,প্রকারভেদ » ডিফ্রাগমেন্ট কি? (Defragment) এতে কি কম্পিউটারের ক্ষতি হতে পারে?

ডিফ্রাগমেন্ট কি? (Defragment) এতে কি কম্পিউটারের ক্ষতি হতে পারে?

ডিস্ক ডিফ্র্যাগমেন্টেশন এমন একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে আপনি আপনার কম্পিউটারের গতি বাড়ানোর পাশাপাশি ল্যাপটপের ব্যাটারি দীর্ঘদিন ব্যবহার করতে পারেন।অর্থাৎ এই প্রক্রিয়াটি ল্যাপটপের ব্যাটারি লাইফ বাড়াতেও কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে ।

ডিস্ক ডিফ্রাগমেন্টেশন বোঝার জন্য আমাদের তিনটে জিনিস বুঝতে হবে।  

প্রথমটি হচ্ছে কম্পিউটার ব্যবহারকারী,  একজন কম্পিউটার ব্যবহারকারী তার কম্পিউটারে বিভিন্ন রকমের  data (Audio, Video, Files, Documents ইত্যাদি) store করে। 

 এরপর কম্পিউটারের মধ্যে থাকা অপারেটিং সিস্টেমটি  এই store করা data টিকে. একটি নির্দিষ্ট জায়গায় save করে।  অন্ততপক্ষে কম্পিউটার ব্যবহারকারী সেই রকমই মনে করেন। 

 এরপর  data যখন Computer System Hard disk Dividestore হতে যায় তখন সেটা কে অপারেটিং সিস্টেম ছোট ছোট Data Packet এ বিভক্ত করে এবং হার্ডডিস্কের মধ্যে save করে।  এখন এটিকে এইরকম থেকে এই রকম ছোট ছোট  Packet এ ভাগে কারণ কারন একটাই,   যাতে  হার্ডডিস্ক  টাকে  সম্পূর্ণ রূপে ব্যবহার করা যায়। 

এখানে অপারেটিং সিস্টেমের কাজ দ্বিমুখী।  এটি আর  ব্যবহারকারী  কে দেখায় যে ফাইলটি একটি নির্দিষ্ট জায়গায় সেভ করা আছে কিন্তু আসলে হার্ডডিস্কে সে ফাইলটিকে বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে সেভ করে। 

 এখানে অপারেটিং সিস্টেম উভয়পক্ষের সুবিধার কথা মাথায় রেখে এমনটা করে।   

ব্যবহারকারীকে দেখায় ফাইলটি একটি নির্দিষ্ট স্থানে save করে যাতে ভবিষ্যতে ব্যবহারকারীর ওই ফাইলটিকে খুঁজে বেড় করতে অসুবিধা না হয়। 

 আবার  অপর দিকে হার্ডডিস্কের  মধ্যে থাকা storage area যাতে সম্পূর্ণরূপে ব্যবহার হয় তার জন্য সে ফাইলটিকে ছোট ছোট টুকরো করে বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে save করে।

ডিস্ক ডিফ্র্যাগমেন্টার কি

 এতক্ষণ আমরা জানলাম কম্পিউটারের মধ্যে যে কোন প্রকারের ডাটা কিভাবে সংরক্ষিত থাকে।  ডিস্ক ডিফ্রাগমেন্টেশন বোঝার জন্য এই সামান্য তথ্য টুকু বোঝা খুবই জরুরী। এবার আসুন আমরা বুঝে নেই ডিস্ক ডিফ্রাগমেন্টেশন আসলে কি। 

ডিস্ক ডিফ্রাগমেন্টেশন একটি প্রক্রিয়া যা ইউটিলিটি সফটওয়্যার এর মাধ্যমে করা হয়। 

যদি আমরা কম্পিউটারের হার্ডডিস্ককে ডিফ্র্যাগ করি, তাহলে কম্পিউটার স্টোরেজ সিস্টেম তার মধ্যে থাকা সমস্ত ডাটা বা ফাইলের Data Packet গুলিকে একটি ক্রম অনুসারে সংগঠিত করে, যাতে আমরা যখনই সেই data access করতে চাইব, তখন কম্পিউটারকে সেই data টি বিভিন্ন জায়গা থেকে খুঁজে নিয়ে আসতে হবে না। 

যার ফলে কম্পিউটারের সেই সময় কোন রকম processing করতে হবে না কারণ data গুলি একই জায়গায় সাজানো রয়েছে।  এর ফলে কম্পিউটার দ্রুত গতিতে আমাদের সামনে ডেটা ফাইল উপস্থাপন করবে।

সুতরাং 

কম্পিউটারে Disk De-fragmentation এমন একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে আমরা হার্ডডিস্কে সংরক্ষিত ডেটাকে একটি সুশৃঙ্খল ক্রমে সংরক্ষণ করি যাতে কম্পিউটার ব্যবহারকারী যখনই সেই ডেটা অ্যাক্সেস করবেন তখন কম্পিউটারকে খুব বেশি প্রসেসিং করতে হয় না। এর ফলে আমাদের কম্পিউটারকে আরও দ্রুত করে তোলে যায়। এবং এর ব্যাটারিও সাশ্রয় হয়।ডিফ্র্যাগ মানে একীভূত করা।

ডিস্ক ডিফ্রাগমেন্ট কাজ কি

ডিস্ক ডিফ্রাগমেন্টেশন এর আসল কাজ হল হার্ডডিস্ক এর মধ্যে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা বিভিন্ন file এর টুকরো গুলিকে একত্রিত করে তাদের হার্ডডিস্ক এর মধ্যে কাছাকাছি জায়গায় save করা।  যাতে একটি ফাইল এর অংশগুলিকে খুঁজে বের করতে পরবর্তীকালে কম্পিউটার কে বেশি কাজ না করতে হয়।

 এর ফলে কম্পিউটার অনেকটা দ্রুত হয়ে উঠতে পারে এবং কম্পিউটারের সাথে যুক্ত ব্যাটারি সাশ্রয় হতে পারে। 

কোন ক্ষেত্রে ডিস্ক ডিফ্রাগমেন্টেশন ব্যবহৃত হয়

এক্ষেত্রে প্রথমে জেনে রাখা ভালো ডিফ্রাগমেন্ট আসলে কি কারণে করা হয়। কম্পিউটার যখন তার hard disk এ কোন data write করে, তখন write করার  সুবিধার জন্য টুকরো টুকরো করে বিভিন্ন জায়গায় লিখে থাকে । এর কারণে data গুলি ডিস্ক এর বিভিন্ন অংশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকে। যে disk এর মধ্যে এই ভাবে data লেখা থাকে তাকে বলা হয় ফ্র্যাগমেন্টেড disk

সুতরাং স্বাভাবিকভাবে কম্পিউটার যখন পরবর্তী সময় এই লেখাগুলি কে দ্বিতীয় বার read করতে যায় তখন তার অপেক্ষাকৃত বেশি সময় লাগে।

এই সমস্যার সমাধান করার জন্য সাধারণত ডিস্ক ডিফ্রাগমেন্ট করা হয়ে থাকে। De-fragmenting সাধারণত এই সমস্ত ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা data গুলিকে একত্রিত করে।

এই সমস্যাটি সাধারনত হার্ডডিস্ক ড্রাইভের দেখা যেত। কারণ তার মধ্যে disk platter গুলি ক্রমাগত পাক খেতে থাকতো যার ফলে লেখার সুবিধার জন্য data গুলি ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকতো।

কিন্তু যদি কোন কম্পিউটারে SOLID STATE DRIVE  লাগানো থাকে সেক্ষেত্রে ডিফ্রাগমেন্টেশন করার দরকার নেই।  কারণ এই SSD গুলিতে কোন রকম platter থাকে না, এখানে কিছু memory chip থাকে যেগুলিতে কম্পিউটার data রাইট করে থাকে। সুতরাং এক্ষেত্রে data ছড়িয়ে থাকার সম্ভাবনা খুবই কম।