Home » কম্পিউটার কি ? – সংজ্ঞা,বৈশিষ্ট্য,প্রকারভেদ » ক্লাউড কম্পিউটিং কী? এবং Cloud Computing এর ব্যবহার

ক্লাউড কম্পিউটিং কী? এবং Cloud Computing এর ব্যবহার

সময় যত এগোচ্ছে, তার সাথে সাথে প্রতিদিন কিছু নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবিত হচ্ছে। আমরা যদি বিশ্বের সাথে পায়ে পা মিলিয়ে হাঁটতে চাই, তাহলে আমাদের এই প্রযুক্তিগুলি সম্পর্কে একটা স্পষ্ট ধারনা থাকা প্রয়োজন। 

এখন যে প্রযুক্তিটি বেশ কিছু সময়ের জাবদ শোনা যাচ্ছে তা হল ক্লাউড কম্পিউটিং। 

কিন্তু এই ক্লাউড কম্পিউটিং কি এবং এটি কি করে?

যদি এই প্রশ্ন তা আপনার মনেও উঠে থাকে তাহলে এই পোস্ট টি শেষ পর্যন্ত পড়ুন।  এখানে আমরা এই প্রযুক্তির সাথে সম্পর্কিত প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর বিস্তারিতভাবে দিয়েছি।

ক্লাউড কম্পিউটিং কী

ক্লাউড কম্পিউটিং হল সেই প্রযুক্তি যেখানে ইন্টারনেট ব্যবহার করে বিভিন্ন ধরনের পরিষেবা প্রদান করা হয়। এই পরিষেবা গুলো যেকোনো ধরনের হতে পারে, সেটা সফটওয়্যার বা স্টোরেজ স্পেসের যেকোনো ধরনের সার্ভার বা অন্য কোনো সার্ভিসে হতে পারে। 

ক্লাউড কম্পিউটিং মানে ইন্টারনেটের মাধ্যমে ব্যবহারকারীর চাহিদা অনুযায়ী যেকোন ধরনের কম্পিউটিং সেবা প্রদান করা।

যদি আমরা সহজ ভাষায় ক্লাউড কম্পিউটিং ব্যাখ্যা করি, তাহলে এই প্রযুক্তিতে ব্যবহারকারীকে ইন্টারনেটের একটি সার্ভারে (যাকে ক্লাউড বলা হয়) ডাটা স্টোরেজের সুবিধা প্রদান করা হয়।

এর জন্য বাবহারকারিকে ক্লাউডে storage space ক্রয় করে তাতে তার যেকোনো পরিমাণ তথ্য সংরক্ষণ করতে পারে এবং বিশ্বের যেকোনো স্থান থেকে তার তথ্য অ্যাক্সেস করতে পারে।

সহজ কথায়, ক্লাউড কম্পিউটিং হ’ল Internet এর মাধ্যমে  কম্পিউটা এর পরিষেবা ( যেমন servers, storage, databases, networking, software, analytics, এবং intelligence ইত্যাদি) সরবরাহ করার পদ্ধতি। 

Cloud computing কে বাড়ি ভাড়া দেওয়ার সাথে তুলনা করলে ভুল হবে না।

সাধারণত আপনি যদি কোন cloud services ব্যবহার করেন তার জন্য নির্দিষ্ট অর্থ, fee হিসেবে দিতে হবে ।

ক্লাউড কম্পিউটিং এর বৈশিষ্ট্য কি

এতে operating cost অনেকটাই হ্রাস পায় , কারন এক্ষেত্রে infrastructure এবং অন্যান্য খরচ থাকেনা। এবং প্রয়োজন অনুযায়ী cloud service এর পরিধি বাড়ান কমানো যায়।

ক্লাউড কম্পিউটিং হ’ল আপনার অ্যাপ্লিকেশন গুলি নিজে পরিচালনা করার জন্য সেরা সমাধান। ক্লাউডে চলমান কোনও অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করার জন্য আপনাকে শুধু মাত্র সেটিকে আপনার পরিসেবার সাথে যুক্ত করতে হবে ।

আজ, পৃথিবীতে লক্ষ লক্ষ লোক cloud এ  বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন (application) যেমন CRM, HR, accounting, এবং এমনকি business applications গুলি ব্যবহার করি।  ক্লাউড ভিত্তিক এই অ্যাপ্লিকেশনগুলি কয়েক দিনের মধ্যে কার্যকর হতে পারে traditional তা সম্ভব নয়।

এন্টারপ্রাইজ সফ্টওয়্যার এগুলি সস্তা কারণ আপনার হার্ডওয়ার এবং সফ্টওয়্যারটিতে বিনিয়োগ করতে হবে না, বা প্রযুক্তির জটিল স্তরগুলির কনফিগারেশন এবং রক্ষণাবেক্ষণের জন্য অর্থ ব্যয় করতে হবে না বা তাদের চালানোর জন্য সুবিধার জন্য অর্থ ব্যয় করতে হবে।

এবং এগুলি বেশিরভাগ অ্যাপ্লিকেশনগুলির তুলনায় আরও পরিমাপযোগ্য, আরও সুরক্ষিত এবং নির্ভরযোগ্য। এছাড়াও, আপগ্রেডগুলি সমর্থিত, যাতে আপনার অ্যাপ্লিকেশনগুলি সুরক্ষিতভাবে উপলব্ধ সমস্ত কার্যকারিতা এবং নতুন বৈশিষ্ট্যগুলি থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে উপকৃত হয়।

ক্লাউড কম্পিউটিং চালু করে কোন প্রতিষ্ঠান

1990 সালে Salesforce নামে একটি কোম্পানি প্রথম ক্লাউড কম্পিউটিং পরিষেবা প্রদান করা শুরু করে।

ক্লাউড কম্পিউটিং এর সুবিধা কি

  • মূল্য – ক্লাউড কম্পিউটিং এর ক্ষেত্রে হার্ডওয়্যার ( hardware) এবং সফ্টওয়্যার কেনার অথবা site এর জন্য ডেটাসেন্টার স্থাপন ও চালানোর মূলধন ব্যয়কে হ্রাস করে । সার্ভারের বিভ্রাত, বিদ্যুৎ এবং শীতলকরণের জন্য বৃত্তাকার বিদ্যুৎ, অবকাঠামো পরিচালনার জন্য আইটি বিশেষজ্ঞর , কোনটার দরকার হয় না।
  • দ্রুততা – বেশিরভাগ ক্লাউড কম্পিউটিং পরিষেবাদি স্ব-পরিষেবা এবং চাহিদার ভিত্তিতে সরবরাহ করা হয়, তাই প্রচুর পরিমাণে কম্পিউটিং সংস্থানগুলি কয়েক মিনিটের মধ্যেই সরবরাহ করা যেতে পারে।
  • আন্তর্জাতিক স্কেল – ক্লাউড কম্পিউটিং পরিষেবাদির সুবিধাগুলির মধ্যে elastically স্কেল করার ক্ষমতা অন্তর্ভুক্ত। ক্লাউড স্পোকে, এর অর্থ সঠিক পরিমাণ তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থান সরবরাহ করা।
  • কর্মক্ষমতা – সর্বাধিক ক্লাউড কম্পিউটিং পরিষেবাদি বিশ্বব্যাপী secure data center গুলির নেটওয়ার্কে চালিত হয় যা নিয়মিত দ্রুত এবং দক্ষ কম্পিউটিং হার্ডওয়্যারের letest প্রজন্মে আপগ্রেড করা হয়। 
  • বিশ্বাসযোগ্যতা – ক্লাউড কম্পিউটিং data backup, পুনরুদ্ধার এবং ব্যবসায়ের ধারাবাহিকতাটিকে সহজ  করে এবং কম ব্যয়বহুল করে তোলে কারণ ক্লাউড সরবরাহকারীর নেটওয়ার্কের একাধিক reliable সাইটে ডেটা মিরর করা যায়।
  • নিরাপত্তা – অনেক মেঘ সরবরাহকারী আপনার নীতি, প্রযুক্তি এবং নিয়ন্ত্রণগুলির একটি বিস্তৃত সেট সরবরাহ করে যা আপনার security কে সামগ্রিকভাবে শক্তিশালী করে, আপনার ডেটা, application এবং infrastructure সম্ভাব্য হুমকির হাত থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে।

ক্লাউড কম্পিউটিং এর প্রকার -Types of Cloud Computing

Public cloud: এই ধরণের infrastructure বিস্তৃত দর্শকদের কাছে accessible ।

Private cloud: এই cloud infrastructure একটি সংস্থার জন্য কাজ করে।  এটি সংস্থাটি নিজেই পরিচালনা করতে পারে (অভ্যন্তরীণ প্রাইভেট ক্লাউড)। 

Cloud Community:এই infrastructure বেশ কয়েকটি সংস্থার দ্বারা ভাগ করা হয়। এটি তাদের নিজস্ব সংস্থা বা তৃতীয় পক্ষের দ্বারা পরিচালিত হতে পারে।

Hybrid cloud: এই Infrastructure দুটি বা ততোধিক clouds থাকে (ব্যক্তিগত, সম্প্রদায় বা পাবলিক)

ক্লাউড পরিষেবাদির ধরণ

যে ধরণের পরিষেবা নির্বিশেষে, ক্লাউড কম্পিউটিং পরিষেবাগুলি ব্যবহারকারীদের একাধিক ক্রিয়াকলাপ সরবরাহ করে:

  • Email
  • Storage, backup, and data retrieval
  • Creating and testing apps
  • Analyzing data
  • Audio and video streaming
  • Delivering software on demand

ক্লাউড কম্পিউটিং এখনও মোটামুটি নতুন পরিষেবাদি তবে বড় কর্পোরেশন থেকে শুরু করে ক্ষুদ্র ব্যবসায়, সরকারী সংস্থাগুলির অলাভজনক এবং এমনকি স্বতন্ত্র গ্রাহকরা বিভিন্ন সংস্থা ব্যবহার করছেন।

ক্লাউড কম্পিউটিং এর ব্যবহার

আমরা সকলেই আমাদের অজান্তে ক্লাউড কম্পিউটিং ব্যবহার করি। এর বাইরে, ছোট ছোট স্টার্ট-আপ থেকে শুরু করে গ্লোবাল কর্পোরেশন বা সরকারি সংস্থা সবাই বিভিন্ন কারণে ক্লাউড কম্পিউটিং ব্যবহার করে থাকে। এর প্রধান ব্যবহার গুলি নীচে বিস্তারিতভাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে।

  • File storage – সাধারণত এই পরিষেবার ব্যবহারকারীরা তাদের ফাইলগুলিকে একটি হোস্ট সিস্টেমে সংরক্ষণ করেন, যাতে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সহজেই অ্যাক্সেস করা যায়। গুগল ড্রাইভ বা ড্রপবক্স এর ভালো উদাহরণ।
  • Website Hosting -যেসব ওয়েবসাইট মালিকরা ওয়েবসাইট হোস্টিং এবং রক্ষণাবেক্ষণের ঝামেলা এড়াতে চান তাদের জন্য ক্লাউড ভিত্তিক ওয়েব হোস্টিং একটি দুর্দান্ত বিকল্প। এখানে ওয়েবসাইট হোস্ট করার পাশাপাশি, ক্লাউড হোস্টিং কম্পানি গুলি তাদের গ্রাহক কে কম্পিউটিং রিসোর্সও প্রদান করে। এই কম্পানি গুলি গ্রাহক এর ওয়েবসাইটকে নিরাপত্তা দেয় এবং এর রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বও নেয়।
  • Testing এবং Development – ক্লাউড কম্পিউটিং কোন সফটওয়্যার, নেটওয়ার্কের টেস্টিং এবং ডেভেলপমেন্টের ক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ক্লাউড পরিষেবাগুলি আপনার সফটওয়্যারটি সঠিক ভাবে চলছে কিনা বা এতে কোন ত্রুটি আছে কিনা তা পরীক্ষা করতে বাবহ্রিত হয়।
  • Backup – আজও অনেক সংস্থা তাদের ডেটা ব্যাকআপ করে একটি স্টোরেজ ডিভাইসে, যদিও এটি খুব একটা কার্যকর নয়। ক্লাউড-ভিত্তিক ব্যাকআপের মাধ্যমে, আপনি সহজেই আপনার ডেটা ব্যাক আপ করতে পারেন। এবং এর থেকে ভবিষ্যতে সহজেই ডেটা পুনরুদ্ধার করা সম্ভব ।
  • Cloud database – প্রতিটি ব্যবসার জন্য একটি ডাটাবেস প্রয়োজন । কিন্তু এর জন্য আপনি অনেক টাকা খরচ করতে হবে এবং তার সাথে আপনার একজন বিশেষজ্ঞেরও প্রয়োজন হবে। অপরদিকে, ক্লাউড ডাটাবেস একটি দুর্দান্ত বিকল্প। ক্লাউড সার্ভিস প্রোভাইডার আপনাকে শুধু Cloud database সাপোর্টই দেবে না বরং ডাটাবেসের রক্ষণাবেক্ষণ ও করবে।
  • Big data analytics – কিছু কিছু ক্ষেত্রে ডাটা বিশাল আকারের হতে পারে। সংক্ষেপে, এই ধরণের ডেটা এত বড় এবং জটিল, যে কোনও সাধারন ডেটা ম্যানেজমেন্ট টুল এটিকে দক্ষতার সাথে সংরক্ষণ বা প্রক্রিয়া করতে সক্ষম নয়। ক্লাউড কম্পিউটিং এই ধরনের ডাটা সংরক্ষণ এবং বিশ্লেষণে করার ক্ষেত্রে সাহায্য করে।

ক্লাউড কম্পিউটিং এর উদাহরণ

ক্লাউড কম্পিউটিং প্রযুক্তির অনেক উদাহরণ আজ আমাদের সামনে রয়েছে। যার মধ্যে থেকে কিছু জনপ্রিয় এবং বিখ্যাত উদাহরণ আপনাদের সামনে তুলে ধরছি।

  1. ইউটিউব: বিখ্যাত ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম ইউটিউবে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ ভিডিও আপলোড করা হয়। ইউটিউব ও ক্লাউড কম্পিউটিং প্রযুক্তি ব্যবহার করে তাদের ভিডিও গুলি সংরক্ষণ করে।
  2. ফেসবুক: ফেসবুকের মত একটি বিখ্যাত সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম, যেখানে কোটি কোটি মানুষের প্রোফাইল আছে এবং প্রচুর ডেটা পাওয়া যায়, তাই ফেসবুকও তাদের ডেটা রাখার জন্য ক্লাউড কম্পিউটিং ব্যবহার করে।
  3. ইমেইল: ইমেইল সেবা প্রদানকারী সকল কোম্পানি (যেমন Gmail, Rediff, yaho) এবং অনলাইন storage space প্রদানকারী সকল কোম্পানি (যেমন ড্রপবক্স, ইয়ানডেক্স, মিডিয়া ফায়ার, মেগা ইত্যাদি) ক্লাউড কম্পিউটিং ব্যবহার করে।