Home » কম্পিউটার কি ? – সংজ্ঞা,বৈশিষ্ট্য,প্রকারভেদ » এন্টিভাইরাস কি এবং antivirus কিভাবে কাজ করে

এন্টিভাইরাস কি এবং antivirus কিভাবে কাজ করে

আপনি যদি একটি কম্পিউটার বা মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন এবং আপনি যদি অনলাইনে কোন রকম কাজ করেন তাহলে ভাইরাস এবং এন্টিভাইরাস এই দুটি শব্দ অবশ্যই শুনতে পেয়েছেন।

এন্টিভাইরাস এর কাজ হল কম্পিউটারের মধ্যে থাকা ভাইরাস কে সনাক্ত করে সেগুলিকে মুছে ফেলা এবং ওপর দিকে কম্পিউটারে ভাইরাস প্রবেশ করতে বাধা দেওয়া। 

এর ফলে কম্পিউটার এবং স্মার্টফোনের সমস্ত ডেটা নিরাপদ থাকে। আপনি যদি আপনার ডিভাইসে ইন্টারনেট ব্যবহার করেন, তাহলে সেগুলো ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। 

কারণ ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিভিন্ন উপায় ডিভাইসের মধ্যে ভাইরাস ঢুকতে পারে এসব এড়াতে আমরা কম্পিউটারে এন্টিভাইরাস ব্যবহার করি।

এন্টিভাইরাস কি বা  এন্টিভাইরাস কাকে বলে

কিন্তু আপনি কি জানেন যে এন্টিভাইরাস আসলে কি, “এন্টিভাইরাস হল এমন একটি সফটওয়্যার বা প্রোগ্রাম যা কম্পিউটারে মধ্যে থাকা সমস্ত ভাইরাসকে মুছে ফেলার কাজ করে”।

 কম্পিউটার সিস্টেমে এর মধ্যে লুকিয়ে থাকা সমস্ত দূষিত প্রোগ্রাম বা ভাইরাস যেমন ম্যালওয়্যার, স্পাইওয়্যার ইত্যাদি কে সনাক্ত করা ও মুছে ফেলার জন্য এন্টিভাইরাস তৈরি করা হয়েছে। 

যদি এই ভাইরাস দ্রুত কোন ডিভাইস থেকে সরানো না হয়, তবে তা সিস্টেমের মধ্যে থাকা সমস্ত ডাটা নষ্ট করে দিতে পারে। এক্ষেত্রে এন্টিভাইরাস ডিভাইস এর সুরক্ষার কাজ করে।

আপনি যদি জানতে চান, এন্টিভাইরাস মানে কি , তাহলে এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন। 

এন্টিভাইরাস প্রোগ্রাম কি

এন্টিভাইরাস একটি প্রোগ্রাম যা কম্পিউটার এবং কম্পিউটারের মধ্যে থাকা বিভিন্ন নথিপত্র বা ডকুমেন্ট কে ভাইরাসের হাত থেকে রক্ষা করে। 

ম্যালওয়্যার এবং ভাইরাস ধ্বংস করার জন্য একটি সফটওয়্যার কে বলা হয় এন্টিভাইরাস। এন্টিভাইরাসে অটো প্রোটেক্ট এবং রিয়েল টাইম প্রোটেকশনের মতো বৈশিষ্ট্য রয়েছে, যা ইন্টারনেট থেকে যেকোন ফাইল ব্যবহার করার আগে, সেটিকে পরীক্ষা করে এবং সেটি ভাইরাস মুক্ত কি না তা বলে দেয়। 

এন্টিভাইরাস প্রধানত সিস্টেমের মধ্যে লুকানো ভাইরাস সনাক্ত এবং ধ্বংস করার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। 

বর্তমান প্রযুক্তির এন্টিভাইরাস ব্যবহারকারীর ডেটাকে বিভিন্ন সিস্টেমে অ্যাডওয়্যার, স্পাইওয়্যার, র‍্যানসমওয়্যার, কীলগার্স, ব্যাকডোর, ট্রোজান হর্স প্রভৃতি প্রোগ্রাম থেকে রক্ষা করে। 

এন্টিভাইরাস শুধুমাত্র কম্পিউটার সিস্টেমে নয় বরং ব্যবহারকারীকে ফিশিং এর মত অনলাইন আক্রমণ থেকে রক্ষা করার উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হয়।

এন্টিভাইরাস এর কাজ কি

বর্তমানে অনেক কোম্পানি এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার তৈরি করে এবং প্রতিটি এন্টিভাইরাসই নিজেদের মতন করে কিছু আলাদা সুবিধা প্রদান করে, কিন্তু সমস্ত এন্টিভাইরাস যে সমস্ত প্রয়োজনীয় কাজ গুলি করে সেগুলি হল:

  • নির্দিষ্ট সময় অন্তর অন্তর ডিভাইসের মধ্যে থাকা ফাইন এবং ডিরেক্টরি গুলিকে স্ক্যান করে 
  • কম্পিউটার এর মধ্যে কোন ম্যালওয়্যার বা কোন অস্বাভাবিক কাজকর্ম চিহ্নিত করে 
  • আপনি যে কোন সময় একটি নির্দিষ্ট ফাইল বা আপনার সম্পূর্ণ কম্পিউটার, অথবা কোন সিডি বা ফ্ল্যাশ ড্রাইভের স্ক্যান করতে পারবেন।
  • সনাক্ত করা কোনও দূষিত প্রোগ্রাম কে সরিয়ে দেয় 
  • কোন দরকারি প্রোগ্রাম বা ফাইল সংক্রমিত হলে সেটিকে মুছে ফেলার আগে  জিজ্ঞাসা করে, যে আপনি ফাইলটি পরিষ্কার করতে চান কিনা
  • কোন নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আপনার কম্পিউটার কতবার সংক্রমিত হয়েছে তা দেখায় 

এন্টিভাইরাস কিভাবে কাজ করে

সমস্ত এন্টিভাইরাস এর মধ্যে একটি ভাইরাস ডেফিনেশন ফাইল থাকে।  টির মধ্যে বিভিন্ন ভাইরাস সম্পর্কে বিভিন্ন রকম তথ্য সেভ করা থাকে। 

যখনই সিস্টেমে কোন ফাইল বা প্রোগ্রাম ইন্সটল করা হয়, এন্টিভাইরাস সেই ফাইল বা সফটওয়্যার স্ক্যান করে। যদি ওই ফাইল বা প্রোগ্রামগুলির সাথে ওই ভাইরাস ডেফিনেশন ফাইল এর মধ্যে থাকা তথ্যের মিল পায়। তৎক্ষণাৎ সেই প্রোগ্রামটিকে ভাইরাস হিসাবে শ্রেণীবদ্ধ করে। 

প্রতিটি এন্টিভাইরাস প্রোগ্রামে ভাইরাস স্ক্যান করার জন্য আলাদা পদ্ধতি রয়েছে।

যখন কোন ভাইরাস এন্টিভাইরাস দ্বারা চিহ্নিত হয়। তখন এন্টিভাইরাস ব্যবহারকারীকে সম্পর্কে করে। এবং ভাইরাসটি থেকে সিস্টেমকে রক্ষা করার বিভিন্ন উপায় সম্পর্কে জানায়। 

এন্টিভাইরাস এর বৈশিষ্ট্য

এন্টিভাইরাসের কিছু প্রধান বৈশিষ্ট্য নিচে দেওয়া হল:

Online protection – যখন আমরা ইন্টারনেট এর মাধ্যমে কোন কাজ করি যেমন অনলাইন শপিং, ফাইল বা মুভি ডাউনলোড করা ইত্যাদি, তখন এন্টিভাইরাস আমাদের ডিভাইসের মধ্যে ব্যাকগ্রাউন্ডে  বিভিন্ন রকম ভাবে সুরক্ষা প্রদান করে। যেমন ডিভাইসের মধ্যে আশা ফাইলগুলিকে স্ক্যান করা,  কোন ক্ষতিকারক ওয়েবসাইট খোলার আগে আমাদের সতর্ক করা এবং ডিভাইসে কোন ম্যালওয়্যার বা ভাইরাস প্রবেশ করছে কিনা তা পরীক্ষা করা  ইত্যাদি। 

Full system scaning – প্রায় সব এন্টিভাইরাসে, আমরা এই সুবিধাটি পাই যার সাহায্যে আমরা আমাদের ডিভাইস বা এর মধ্যে থাকা সমস্ত ডেটা একসাথে স্ক্যান করতে পারি। এবং যদি আপনার কম্পিউটার সিস্টেম বা মোবাইল ডিভাইসে কোন ম্যালওয়্যার বা ভাইরাস থাকে, তাহলে এন্টিভাইরাস সেগুলিকে সরিয়ে দেয়।

এন্টিভাইরাস এর ইতিহাস

আজ থেকে 70 বছর আগে, প্রথম কম্পিউটার ভাইরাসের জন্ম হয়েছিল। সেই সময় মেইনফ্রেম কম্পিউটার প্রচলিত ছিল। তাই এই ভাইরাসটি মেইনফ্রেম কম্পিউটার সিস্টেমে সংক্রমিত করতে ব্যবহৃত হত। 

এর পর ” রে টমলিনসন ” নামে এক বেক্তি এই সমস্যা সমাধানের জন্য ” দ্য রিপার ” নামে একটি প্রোগ্রাম তৈরি করে। 

1981 সালে “এলক ক্লোনার” নামে একটি ভাইরাস অ্যাপল কোম্পানির দ্বিতীয় সিরিজের কম্পিউটারে ব্যাপক ভাবে খতিগ্রস্থ করে। 

1980-এর দশকের আগে ইন্টারনেট এর ব্যবহার  সীমিত ছিল, যার কারণে ভাইরাস ফ্লপি ডিস্কের মাধ্যমে এক সিস্টেম থেকে অন্য সিস্টেমে ছড়াত। কিন্তু এর পর ইন্টারনেটের ক্রমবর্ধমান বিকাশের কারণে অনলাইনে মাধ্যমে ভাইরাস দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে।

1987 সালে ” আন্দ্রেয়াস লুনিং ” এবং ” কাই ফেজ” নামে দুই ব্যক্তি প্রথম এন্টিভাইরাস তৈরি করেছিলেন। 

1987 সালে,ম্যাকএফি কোম্পানি নামে এক সংস্থা “ভাইরাস স্ক্যান” নামে এন্টিভাইরাসের প্রথম চালু করেছিল। তখন ম্যাকআফি ইন্টেল সিকিউরিটি কোম্পানির একটি অংশ ছিলেন।

সময়ের সাথে সাথে, 1988 সাল নাগাদ, এন্টিভাইরাস উৎপাদনকারী সংস্থার সংখ্যা বৃদ্ধি পায়।

1990 সালে কম্পিউটার এন্টিভাইরাস রিসার্চ অর্গানাইজেশন (CARO) প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার এর নাম

অনেক ধরনের এন্টিভাইরাস আছে। এবং একেক ধরনের এন্টিভাইরাস একেক রকম হবে আমাদের কম্পিউটার এবং তার মধ্যে থাকা ইনফর্মেশন কে রক্ষা করতে সাহায্য করে।  তাছাড়াও বিভিন্ন রকমের ডিভাইস যেমন কম্পিউটার এবং মোবাইলের জন্য আলাদা রকমের এন্টিভাইরাস পাওয়া যায়। 

কম্পিউটার এবং স্মার্টফোনে ব্যবহার করা হয় এইরকম বেশকিছু এন্টিভাইরাস এর উদাহরণ নিচে দেওয়া হল। 

কম্পিউটার বা ল্যাপটপের জন্য ব্যবহৃত এন্টিভাইরাস:

  • Comodo Free Antivirus
  • Avast Free Antivirus
  • AVG Free Antivirus
  • Avira Free Antivirus
  • Bitdefender Antivirus
  • Mcafee Antivirus Plus
  • Norton Antivirus
  • Kaspersky Anti-virus
  • NPAV Antivirus
  • F-Secure Antivirus

অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলের জন্য ব্যবহৃত এন্টিভাইরাস:

  • 360 Security
  • Avira Antivirus
  • Avast Mobile Security
  • AVG Antivirus Security
  • CM Security
  • Kaspersky Internet Security
  • Lookout Security & Antivirus
  • Malwarebytes Anti-malware
  • Mcafee Security And Power Booster
  • Norton Security & Antivirus

এন্টিভাইরাস ব্যবহারের সুবিধা

বর্তমানে অধিকাংশ ইলেকট্রনিক ডিভাইসের মাধ্যমে অনলাইনে বিভিন্ন রকম কাজ করা হয়,  যার ফলে হ্যাকিং এবং ভাইরাসের ঝুঁকিও বেড়েছে। 

এই সমস্ত হ্যাকিং এবং ভাইরাসের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য আমাদের বিভিন্ন রকম সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত।  বা এমন অনেক কাজ করা থেকে বিরত থাকা উচিত যা এই সমস্ত ভাইরাস বা হ্যাকিংয়ের সম্ভাবনা বাড়াতে পারে। 

প্রাত্যহিক জীবনে ইন্টারনেট ব্যবহার করার সময় এই সমস্ত বিধি নিষেধ সবসময় পালন করা সম্ভব হয়ে ওঠেনা, সেক্ষেত্রে এন্টিভাইরাস অনলাইনে আমাদের সুরক্ষা নিশ্চিত করে। 

ইন্টারনেট ব্যবহারের বিভিন্ন সমস্যা এড়ানোর জন্য এন্টিভাইরাস ব্যবহার করা হয়।  আসুন এবার আমরা এন্টিভাইরাস ব্যবহারের কিছু সুবিধা জেনেনি:

  • ভাইরাস, ম্যালওয়্যার এবং র‍্যানসমওয়্যার সনাক্ত করা, ব্লক করা এবং অপসারণ করা
  •  ইন্টারনেট ব্যবহারকারির পরিচয় চুরি এবং ফিশিং  ব্লক করা এবং জালিয়াতি প্রতিরোধ করা।
  • অনলাইন এ কোন লিঙ্ক করার আগে এবং বিপজ্জনক ওয়েবসাইট সম্পর্কে সতর্কতা করা
  • ডার্ক ওয়েব স্ক্যান করে বলে দেয় আপনার ইমেইল এড্রেস এর ওপর কারোর কুনজর আছে কিনা 
  • অনলাইন অ্যাকাউন্ট নিরাপদ করে এবং পাসওয়ার্ড এনক্রিপশন করে সেটিকে সুরক্ষিত করে 
  • অনলাইনে কীভাবে আরও নিরাপদ হওয়া যায় তা শেখানোর জন্য বিভিন্ন প্রশিক্ষণ প্রদান করে
  • আপনার কম্পিউটারের টিউন আপ করে যাতে এটি ভালো ভাবে চলতে পারে, ঠিক নতুনের মতো