নতুন বিষয়

Digital Marketing

এক সময় online marketing  ছিল পণ্য এবং পরিষেবাগুলিকে বাজারজাত করার এক নতুন এবং ভিন্ন উপায়। তবে গত কয়েক বছরের মধ্যেই Digital Marketing এর গুরুত্ব বহু গুন বেড়েছে।

বর্তমান যুগে ডিজিটাল মার্কেটিং ব্যবসা এবং গ্রাহক এর সম্পর্কের মূল ভিত্তি এবং অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ হয়ে দারিয়েছে। এখন সধু মাত্র একটি website থাকাটাই যথেষ্ট নয়। তার সাথে যথা যত digital marketing কৌশল কাজে না লাগালে , সময়ের কারন আপনাকে পিছিয়ে পরতে হবে। 

আজকাল আমাদের প্রত্যেকটি কাজের সাথে internet জড়িয়ে রয়েছে । আর ঠিক সেই কারনে ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তা বেশি করে লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

Computer

Computer একটি electronic device যা information বা data নিয়ে বিভিন্ন ধরনের কাজ করতে সক্ষম। যেমন data store, retrieve, এবং process করা। আমরা সকলেই প্রতিদিন computerএ কিছু না কিছু কাজ করে থাকি। শুনলে অবাক লাগবে আমরা প্রতি দিন যে ফোন (যে কোন ধরনের ফোন) টি ব্যবহার করি সেটিও একটি কম্পিউটার। এ থেকে বোঝা যায় আমাদের সামনে বিভিন্ন ধরনের কম্পিউটার ছরিয়ে রয়েছে।

কম্পিউটার কে আমরা বিভিন্ন কাজ করার জন্য ব্যবহার করতে পারি। এবং একটি computer system আমাদের বলা কাজ সম্পন্ন করার জন্য বিভিন্ন devices বা hardware এর সাহায্য নিয়ে থাকে, এবং সেই devices গুলি একে অপরের সাথে বিভিন্ন ভাবে যুক্ত থাকতে পারে। একে এক কথায় computing environment বলা হয়ে থাকে।

কম্পিউটার সাক্ষরতা হ’ল কম্পিউটার এবং প্রযুক্তি দক্ষতার সাথে ব্যবহার করার জ্ঞান এবং ক্ষমতা।

বা

কম্পিউটার সাক্ষরতার বা Computer literacyর আর একটি  সংজ্ঞা হতে পারে কম্পিউটার হার্ডওয়্যার (computer hardware), সফ্টওয়্যার (software) এবং ইন্টারনেট (Internet) ব্যবহারের জন্য প্রয়োজনীয় জ্ঞান এবং দক্ষতা।

একজন ব্যক্তি কতটা স্বাচ্ছন্দ্যের সাথে কোন কম্পিউটার প্রোগ্রাম (Computer Program) বা অন্যান্য অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার (Application Software) ব্যবহার করতে পারে তা বোঝায়। 

বর্তমান যুগে কম্পিউটার স্বাক্ষরতা একটি খুব গুরুত্বপূর্ণ দক্ষতা হিসাবে বিবেচিত হতে শুরু করেছে । নিয়োগকর্তারা এমন কর্মচারী চান যাদের basic computer skills আছে কারন আজকাল অধিকাংশ কর্ম ক্ষেত্রই computer operated অর্থাৎ কম্পিউটার দ্বারা পরিচালিত হয়।

Operating System

কম্পিউটারে অপারেটিং সিস্টেম (Operating system) এর প্রয়োজনীয়তা বোঝার জন্য আমাদের ফিরে যেতে হবে সেই সময়ে যখন অপারেটিং সিস্টেম এর কোন অস্তিত্বই ছিল না।

সুতরাং এই অবস্থায় আমরা কম্পিউটার দিয়ে কি করতে পারি বা কম্পিউটারে কি রাখতে পারি? Operating system না থাকলে কম্পিউটারকে দিয়ে কোন কাজ করাতে হলে আমাদের প্রতি পদক্ষেপে programming জানতে হবে এবং এক একটি কাজ করানোর জন্য আলাদা আলাদা program লিখতে হবে.

এই সমস্ত আলাদা আলাদা প্রোগ্রাম গুলি কম্পিউটারের মধ্যে থাকা বিভিন্ন hardware (যেমন Display, Sound hardware, UART, Timer ইত্যাদি ) গুলিকে দিয়ে কাজ করাবে।

অপারেটিং সিস্টেম না থাকলে আমরা কম্পিউটারকে দিয়ে একই সঙ্গে বিভিন্ন রকম কাজ করাতে পারবো না। এই অবস্থায় কম্পিউটার কোন একটি নির্দিষ্ট সময়ে একটি মাত্র কাজ করতে পারবে। এতে কোন সমস্যা না থাকলেও কম্পিউটার এর full potential explore করা সম্ভব হবে না।

কম্পিউটারের অপারেটিং সিস্টেম বা OSকম্পিউটারে সমস্ত সফ্টওয়্যার এবং হার্ডওয়্যার পরিচালনা করে। বেশিরভাগ সময়ে, একই সময়ে বেশ কয়েকটি বিভিন্ন কম্পিউটার প্রোগ্রাম (Multitasking) কে চলমান থাকতে সাহায্য করে এবং সেগুলির জন্য আপনার কম্পিউটারের কেন্দ্রীয় প্রসেসিং ইউনিট (সিপিইউ), মেমরি এবং স্টোরেজ অ্যাক্সেস করতে দেয়।

Smartphone

স্মার্ট ফোন

স্মার্টফোনগুলি হ’ল সেই মোবাইল ফোন যাদের আধুনিক হার্ডওয়্যার, সফ্টওয়্যার সক্ষমতা এবং মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম এটিকে কোনও বৈশিষ্ট্যযুক্ত ফোন।
এটি আপনাকে ফোন-কল করা এবং SMS পাঠানর ছাড়াও আরও অনেক কিছু করতে দেয়। যেমন  ইন্টারনেট ব্রাউজ করা এবং একটি কম্পিউটারের মতো সফটওয়্যার প্রোগ্রাম ও চালান সম্ভব।
স্মার্টফোনে উপস্থিত আধুনিক হার্ডওয়্যার, সফ্টওয়্যার এবং মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম এর জন্য “মোবাইল কম্পিউটিং” করা সম্ভব হয়। মাল্টিটাস্কিং বা অনেক কাজ এক সঙ্গে করার ক্ষমতা  স্মার্টফোন গুলির একটি প্রধান বিশিষ্ট।